সাতকানিয়ায় তিন লাখ টাকা লুটের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত মূল হোতা কারাগারে


আপডেটের সময়ঃ জানুয়ারি ২, ২০২১


চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় মাছ ব্যবসায়ীর তিন লক্ষাধিক টাকা লুটের ঘটনায় গ্রেফতারকৃত মূল হোতাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

এক মাছ ব্যবসায়ী মাছ বিক্রি করে ফেরার পথে তার টাকা ছিনিয়ে নেয়া হয়। সাতকানিয়ার ছদাহা ইউনিয়নে মাছের ঘেরের গাড়ি থেকে তিন লাখ ১০ হাজার টাকা লুটের ঘটনায় ওই মূল হোতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

স্থানীয় ছাদাহা ইউনিয়নের হুজুর পাড়ার ২ নং ওয়ার্ডের দানু মিয়া সওদাগরের ছেলে বদিউল আলম রাশেদকে নিজ বাড়ি থেকে গত বুধবার ভোর রাতে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের আগে গত রোববার ভোর সাড়ে ৪টায় ছদাহা ইউনিয়নের মিয়া বাড়ির সামনে থেকে এ টাকা লুট হয়।

সাতকানিয়া থানার ওসি তদন্ত সুজন বলেন, বদিউল আলম রাশেদকে ভোর রাত ৫টায় নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদিকে তাকে গ্রেফতারের পর আদালতে পাঠানো হলে আদালত  তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

জানা গেছে, ছদাহা ইউনিয়নের সন্দ্বীপ পাড়া এলাকায় মোহাম্মদ হাবিবুর রহমানের মাছের ঘের রয়েছে। প্রতিদিন ভোরে ওই ঘের থেকে মাছ ধরে ট্রাকযোগে চট্টগ্রামের বিভিন্ন অঞ্চলে পাঠানো হচ্ছিল। শনিবার ভোরে মাছ বিক্রি করে ঘেরে ফিরে আসার পথে ছদাহা ইউনিয়নের মিয়া বাড়ির সামনে অস্ত্র হাতে কিছু দুর্বৃত্ত হাবিবুর রহমানের একটি মাছের ট্রাক থামায়। এ সময় মাছ বিক্রির তিন লাখ ১০ হাজার টাকা তারা কেড়ে নেয়।

এ বিষয়ে মাছের ঘেরের মালিক হাবিবুর রহমান বলেন, রাতে ঘের থেকে মাছ তুলে ৫টি ট্রাকে বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়েছিল। ভোরে একটি ট্রাক ঘেরে ফিরে আসার পথে ছদাহার মিয়া বাড়ির সামনে থামায় অস্ত্রধারী সাত-আট জন ডাকাত। তারা মাছ বিক্রির তিন লাখ ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। আমি এ ঘটনায় সাতকানিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, মাছের ঘেরের মালিক হাবিবুর রহমান ডাকাতির একটি অভিযোগ দিয়েছেন। এ ঘটনায় বদিউল আলম রাশেদকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।