লোমহর্ষক ঘটনা ঘটানোকারীদের বিরুদ্ধে সরকার জিরো টলারেন্স নীতিতে অবস্থান করছে


আপডেটের সময়ঃ অক্টোবর ৫, ২০২০


চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ইদানিংকালে ধর্ষণ, নারী ও শিশু নির্যাতনসহ যে সকল লোমহর্ষক ঘটনা ঘটছে এদেরকে আইনের আওতায় এনে সরকার জিরো টলারেন্স নীতিতে অবস্থান করছে। এ সমস্ত চলমান ঘটনাবলিতে দেশ উত্তাল হলেও বিএনপি ঘোলা জলে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে। এ সমস্ত ঘটনার সূচনা হয়েছিলো তাদের শাসনামলে। তাই এ সমস্ত ঘটনা ইস্যু করে বিএনপি মাঠ গরম করতে চাইছে। আমরাও চাই এসব ঘটনাবলির পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে এবং অপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত হোক।

সোমবার (৫ অক্টোবর) বিকেলে ৩নং পাঁচলাইশ ওয়ার্ডের ইউনিটের কার্যকরী কমিটির পৃথক পৃথক সভায় উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সাবেক সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর দীর্ঘ ২১ বছর পরিকল্পিতভাবে ইতিহাস বিকৃতি ঘটনা হয়েছে এবং মুক্তিযুদ্ধের সকল মূল্যবোধ বিসর্জন দিয়ে পাকিস্তানি ভাবধারায় দেশ পরিচালিত হয়েছিল। তাই ৭৫ পরবর্তী প্রজন্ম বিভ্রান্তির জালে আবদ্ধ হয়ে ইতিহাসের উল্টোযাত্রায় গা ভাসিয়ে দিয়েছিল এবং তারাই অবচেতন মনে ৭১’র পরাজিত শক্তিদের শিবিরে ঢুকে পড়েছিল। এ কারণে এদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী একটি স্রোত এখনো বহমান। তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শাসনামলে সেই পাপমোচনের অধ্যায় সূচিত হয়। এখন বর্তমান প্রজন্ম জানতে পারছে বাঙালি জাতিসত্তার সঠিক ইতিহাস এবং নতুন প্রজন্মের আস্থা অর্জনের মধ্য দিয়ে ২০০৮ সাল থেকে পরপর তিনবার শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি ক্ষমতাসীন রয়েছে। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, কিছু বিপথগামী তরুণ যারা ছাত্রলীগ, যুবলীগে ঢুকে পড়েছে তারা নষ্ট খবরের শিরোনাম হয়ে সরকারের ভাবমূর্তিকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। দলের ভিতর থেকে এদেরকে যারা আশ্রয় প্রশ্রয় দিয়েছে এবং দুষ্কৃর্মে সহযোগিতা করেছে তাদেরকেও আইনের আওতায় এনে চিরতরে দল থেকে বহিষ্কার করতে হবে এবং সরাসরি অপরাধীদের মতই তাদেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। এটা করতে পারলেই আওয়ামী লীগ ও বর্তমান সরকারের প্রতি সাধারণ মানুষের আস্থা ও বিশ্বাসের তিলমাত্র পাঠল ধরবে না। তিনি তৃণমূল স্তর থেকে উপরের স্তর পর্যন্ত মাদক সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ ও নিপীড়নমূলক কার্যকলাপ ও জাতীয় সম্পদ লুণ্ঠনের সাথে তিল পরিমাণ সম্পৃক্ত আছে এমন ব্যক্তিদের কমিটিতে না রাখার দলীয় সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কঠোর নির্দেশনা অনুসরণের আহ্বান জানান।

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও আসন্ন চসিক নির্বাচনে মেয়র পদে নৌকা প্রতীক প্রার্থী এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, বিএনপি জামাত এদেশে অরাজকতা, নাশকতা এবং ধ্বংসাত্মক রাজনীতির ইন্ধনদাতা। তারা হাজার হাজার মায়ের কোল খালি করেছেন। ধর্মান্ধতাবাদ ও জঙ্গীবাদের উত্থান ঘটিয়ে এদেশকে একটি সাম্প্রদায়িক ও অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করতে চেয়েছিল। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের সেই স্বপ্নকে দুঃস্বপ্নে পরিণত করে রাজনীতির মাঠ থেকে বিতাড়িত করেছেন। তারপরেও তারা বসে নেই। এরা দুবাই ও লন্ডনে বসে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থার সাথে গোপন বৈঠক করে পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতা দখল করতে চায়। তিনি আগামী চসিক নির্বাচনে মেয়র পদে নৌকা প্রতীকের বিজয় নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে বলেন এক্ষেত্রে এটা আমার ব্যক্তিগত বিজয়ের প্রত্যাশা নয়। নৌকা যেহেতু মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা, মাটি ও মানুষের প্রতীক তাই নৌকাকে বিজয়ী করা নগরবাসীর ঈমানী দায়িত্ব।

৩নং পাঁচলাইশ ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের আওতাধীন এ ইউনিটের সভাপতি আবুল কালাম আবু, বি ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ওমর আলী, সি ইউনিটের সভাপতি হাজী মো: রফিক উদ্দিন কালু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কার্যকরী কমিটির সভায় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য আলহাজ্ব সফর আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, বন পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মশিউর রহমান চৌধুরী, ত্রাণ সমাজ কল্যাণ সম্পাদক হাজী মোহাম্মদ হোসেন, যুব ক্রীড়া সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, উপ প্রচার সম্পাদক শহিদুল আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য গাজী শফিউল আজিম, মহব্বত আলী খান, সাইফুদ্দীন খালেদ বাহার, হাজী জাফর আলম চৌধুরী, হাজী বেলাল আহমদ, থানা আওয়ামী লীগের খলিলুর রহমান, মো: মঈন উদ্দীন, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের মো: জামাল উদ্দিন, আবদুস শাকুর ফারুকী, এ ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম, বি ইউনিটের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম, সি ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক মো: সেলিম প্রমুখ।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।