বেইলী ব্রীজ ভেঙ্গে গিয়ে সৃষ্টি হয়েছে জনদূর্ভোগ, বিকল্প সড়ক নির্মাণ করছে সেনাবাহিনী


আপডেটের সময়ঃ জানুয়ারি ২১, ২০২১


রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে সদর উপজেলার কুতুকছড়ি এলাকায়  বেইলী ব্রীজ ভেঙ্গে গিয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে জনদূর্ভোগর সৃষ্টি হয়েছে। এতে করে বন্ধ হয়ে গেছে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি-মহালছড়ি-নানিয়ারচর সড়কে সরাসরি যান চলাচল।

রাঙামাটি সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে,১৯৮৪ সালে নির্মিত এই বেইলী সেতুটিতে  অতিরিক্ত পাথর বোঝাইয়ের কারনে ভেঙ্গে গিয়ে ট্রাকসহ পানিতে পড়ে যায়।

সরেজমিনে কুতুকছড়ি ব্রীজ এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে ,ব্রীজটি ভেঙ্গে যাওয়ায় কুতুকছড়ি এলাকার সাধারন মানুষরা নিজ উদ্যেগে বাঁশের সাকো তৈরী করে সাময়িকভাবে  চলাচল করছে।কিন্তু স্থানীয়দের দাবী বেইলী ব্রীজটি খুলে নতুন করে একটি পাঁকা ব্রীজ নির্মাণ করা হোক।

এদিকে,সাধারণ মানুষের এ দুর্দশা লাঘবে এরই মধ্যে এগিয়ে এসেছে সেনাবাহিনী। সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে সড়ক বিভাগকে সহায়তা করার জন্য সদর দপ্তর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেডের নির্দেশে স্থানীয় ২০ ইসিবি বিকল্প সেতু নির্মাণে দিন রাত কাজ করে চলেছে।

রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে যাতায়াতকারী যাত্রী কালু মিয়া বলেন, আমি প্রতি সপ্তাহে এখান থেকে কলা,হলুদসহ বিভিন্ন মালামাল চট্টগ্রামে নিয়ে যায়। কিন্তু সড়ক যোগাযোগ বন্ধ থাকার ফলে আমি খুবই ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি।

রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে ভাড়ায় চালিত মোটর সাইকেল চালক মো: আবুল হোসেন জানান, আগে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে সরাসরি ভাড়া নিয়ে যেতাম । কিন্তু ব্রীজটি ভেঙ্গে যাওয়ার ফলে এখন শুধু  কুতুকছড়ি পর্যন্ত ভাড়া নিয়ে আসতে পারছি। ড্রাইভার আবুল বলেন, এ ব্রীজটি মেরামত করলেও ঝুকিঁ থেকেই যায় তাই এখানে নতুন করে একটি ব্রীজ তৈরী করলে ভাল হয়।

নানিয়ারচর সরকারী মডেল হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক অঙ্গদ চাকমা বলেন, এ সড়ক দিয়ে আমার প্রতিদিন যাতায়াত করতে হয়। বেইলী ব্রীজটি ভেঙ্গে যাওয়ার ফলে আমাদের সীমাহীন দুর্ভোগ পোহতে হচ্ছে।তিনি বলেন, কুতুকছড়ি এই বেইলী ব্রীজের পরিবর্তে নতুন করে একটি পাকা ব্রীজ নির্মান করা হোক যাতে করে জনসাধারণ এ ভোগান্তি থেকে রেহাই পায়।

রাঙামাটি সদর উপজেলার কুতুকছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদ্ম কুমার চাকমা বলেন,ব্রীজটি ১২ জানুয়ারী ভেঙ্গে যাওয়ার কারনে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে পুরোপুরি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল। আমরা এ এলাকার ব্যবসায়ীদের উদ্যেগে একটি বাশেঁর সাকো করে দিয়েছি।সেনাবাহিনী বিকল্প সড়ক নির্মানের জন্য দ্রুত কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, রাঙামাটি সড়ক বিভাগ বেইলী ব্রীজটি পুনরায় মেরামত কাজ করলেও কতদিন এ ব্রীজটি টিকে থাকবে তার কোন নিশ্চয়তা নাই। তাই আমি সেতুমন্ত্রীর কাছে দাবী জানাচ্ছি একটি নতুন গার্ডার ব্রীজ যাতে এখানে নির্মান করা হয়।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদর দপ্তর ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেডের ২০ ইসিবির প্রকল্প কর্মকর্তা মেজর এস এম খালেদুল ইসলাম বলেন, রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কের কুতুকছড়িতে অবস্থিত ৬৪ মিটার বেইলী ব্রীজটি সড়ক দূর্ঘটনায় নদীতে ভেঙ্গে যাওয়ার ফলে রাঙামাটি-খাগড়াছড়ি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে। এ ক্ষতিগ্রস্থ সড়কটি মেরামত করার লক্ষ্যে রাঙামাটি সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর  ৩৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেডের সার্বিক তত্বাবধানে ২০ ইসিবি গত ১৫ জানুয়ারী থেকে অত্যন্ত দ্রুত গতিতে একটি বেইলী ডাইভারশান সড়ক নির্মাণ কাজ শুরু করেছে।তিনি বলেন, এ সড়কে যান চলাচল সচল রাখার জন্য ১৪০ ফুট দৈর্ঘ্যর বেইলী সেতু এবং ২৪০ মিটার এপ্রোচ সড়ক নির্মানের কাজ চলমান রয়েছে।এ বিকল্প সড়কটি নির্মান করে অত্রি দ্রুততম সময়ের মধ্যে যান চলাচলে জন্য উন্মুক্ত করা দেয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে রাঙামাটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো: শাহে আরেফীন বলেন, রাঙামাটি-খাগাড়াছড়ি সড়কে অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে সড়ক যোগাযোগ চালু করার জন্য ৬৪ মিটার এর এই ব্রীজটিতে বিশেষজ্ঞ দল পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে বেইলী ব্রীজ সংস্কার  কাজ শুরু করা হয়েছে। তিনি বলেন, আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে এ ব্রীজটি চালু করতে পারব।মো: শাহে আরেফীন বলেন, পাশাপাশি একটি বিকল্প সড়ক নির্মানে সেনাবাহিনীর ৩৪ কনষ্ট্রাকশন ব্রিগেডের ২০ ইসিবি এগিয়ে এসেছে।আমরা সেনাবাহিনীকে ধন্যবাদ জানাই অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে বিকল্প সড়ক নির্মানে এগিয়ে আসার জন্য।

কুতুকছড়ি এলাকায় একটি নতুন ব্রীজ স্থাপনের জন্য  এলাকাবাসীর দাবী সম্পর্কে  নির্বাহী প্রকৌশলী মো: শাহে আরেফীন আরো বলেন, এখানে ৮১ মিটার দৈর্ঘ্য একটি আরসিসি গার্ডার ব্রীজ নির্মানের প্রকল্প গ্রহন করা হয়েছে। তিনি বলেন, শুধু এটি নয় তিন পাবর্ত্য জেলার ৯৭ টি বেইলী সেতু ও চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারের ২০ টি সেতু প্রতিস্থাপনের জন্য ১৩০৮ কোটি টাকার প্রকল্প নেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১২ জানুয়ারী মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৬ টার দিকে রাঙামাটি সদর উপজেলার কুতুকছড়িতে বেইলী ব্রীজ ভেঙ্গে গিয়ে পাথর বোঝাই ট্রাক খালে পড়ে  চালকসহ তিনজন নিহত হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদক-রাঙামাটি, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।