পাহাড়ে উন্নয়ন করতে গেলে সন্ত্রাসীরা চাঁদার জন্য অস্ত্র তাক করে রাখে

কাউখালী আলোচনা সভায় দীপংকর তালুকদার এমপি

আপডেটের সময়ঃ ডিসেম্বর ৯, ২০২১

খাদ্য মন্ত্রনালয় সম্পকিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক পার্বত্য প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার বলেছেন, বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বিচক্ষনতায় দেশ অনেকদুর এগিয়ে গেছে। পার্বত্যবাসির প্রতি আন্তরিকতা আছে বলেই প্রধানমন্ত্রী পার্বত্য চট্টগ্রামের উন্নয়নে হাজার হাজার কোটি টাকার কাজ বাস্তবায়ন করেছে। তিনি বলেন, সরকারের সকল উন্নয়নের সুফল ভোগ করেও পাহাড়ের কিছু মহল সরকারের উন্নয়ন কাজে বাঁধাগ্রস্থ করছে। আজ অনেক ধরনের বাঁধা বিপত্তি কাটিয়ে সরকার

পাহাড়ে উন্নত শিক্ষাগ্রহণ ও জনগনের স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে মেডিকেল কলেজ স্থাপন করেছেন। আমরা পাহাড়ে উন্নয়ন করতে গেলে সন্ত্রাসীরা চাঁদার জন্য অস্ত্র তাক করে রাখে। তারা পাহাড়ের জনগণকে জিম্মি করে মানব ডাল হিসেবে ব্যবহারের মাধ্যমে উন্নয়ন কাজে পদে পদে বাঁধার সৃষ্টি করছে। যারাই এ কলেজ স্থাপনে বাঁধাসৃষ্টি করেছে আজ তারাই স্বাস্থ্যসেবা থেকে শুরু করে ছেলে মেয়েদের ভর্তি ও চাকুরির সুবিধা ভোগ করছে। বন্দুকের ভয় দেখিয়ে নির্বাচনে জেতার ব্যর্থ চেষ্টা চালাচ্ছে। জনপ্রতিনিধিদের হত্যার মাধ্যমে পাহাড়জুড়ে নৈরাজ্য সৃষ্টি করছে। তিনি বলেন, কোন একটি জাতি বা গোষ্টীর কল্যানে নয় আওয়ামীলীগ সরকার সকল সম্প্রদায়ের কল্যানে কাজ করে। তিনি বলেন, সাধারন মানুষদের জিম্মি করে পাহাড়ে অবৈধ অস্ত্রের মাধ্যমে কিছু চাঁদাবাজি, খুন, গুম অশান্তি সৃষ্টি করছে। যা কোন ভাবেই কাম্য নয়। পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে প্রশাসন’সহ সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

বুধবার সকালে রাঙামাটির কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ৩১ হতে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ নবনিমিত ভবনের উদ্বোধন শেষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে দীপংকর তালুকদার এমপি এসব কথা বলেন।

সিভিল সার্জন ডা: বিপাশ খীসার সভাপতিত্ব অনুষ্টিত আলোচনা সভায় অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন করেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অংসুই প্রূ চৌধুরী, সাবেক চেয়ারম্যান চিংকিউ রোয়াজা, পাবত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য হাজী কামাল উদ্দিন, রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য রাম লিয়ান পাংখোয়া, সুবীর চাকমা,কাউখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সামশুদোহা চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী নাজমুন আরা সুলতানা,স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ মহসীন। । আলোচনার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা.সুইমি প্রু রোয়াজা।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ অংসুই প্রু চৌধুরী বলেন, সমতল অঞ্চলের চাইতে পার্বত্য অঞ্চল শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও বিভিন্ন ক্ষেত্রে এখনো অনেক পিছিয়ে রয়েছে। অন্য জেলা থেকে এ জেলায় বড় চিকিৎসক ও কর্মকর্তা বদলি হয়ে আসলে তারা বেশীদিন থাকতে চাইনা। কোন না কোন কারণ দেখিয়ে তারা এখান থেকেই চলে যেতে চাই। তিনি বলেন, আমরা যদি আমাদের ছেলে মেয়েদের উন্নত শিক্ষা করে ভালো চিকিৎসক-কর্মকর্তা পদে অধিষ্টিত করতে পারি তাহলে তারা এখানে থেকেই এই পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীদের কল্যানে কাজ করতে পারবে। তাই এখন থেকেই তাদের সেভাবে গড়ে তোলার অহ্বান জানান তিনি।

এর আগে দীপংকর তালুকদার এলজিইডি কর্তৃক বাস্তবায়িত কাউখালী উপজেলার চম্পাতলী ও আরটিএম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনিমিত ভবনের উদ্বোধন  এবং কাউখালী উপজেলা সদরে কাউখালী উপজেলা পরিষদের সম্প্রসারিত চারতলা ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। বিকেলে কাউখালী উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে কাউখালী উপজেলায় নিবাচিত আওয়ামীলীগ সমথিত ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের সংবধনা অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।

নিজস্ব প্রতিবেদক-রাঙামাটি।

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।