নারীর লালিত স্বপ্ন পূরণে প্রধানমন্ত্রী জয়িতা ফাউন্ডেশন নির্মাণ করেছেন: প্রতিমন্ত্রী


আপডেটের সময়ঃ ফেব্রুয়ারি ১০, ২০২১


মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের জনসংখ্যার অর্ধেক অংশ নারী। এ নারী সমাজকে বাদ দিয়ে দেশের উন্নয়ন সম্ভব নয়। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালে সংবিধানে নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সরকার নারীর দক্ষতা ও সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করছে।

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১১ টায় ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জেলা  শিল্পকলা একাডেমিতে  চট্টগ্রাম জেলা জয়িতা সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমি প্রান্তে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার এবিএম আজাদ, সাবেক অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার শংকর রঞ্জন শাহা, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান ও সাবেক সংসদ চেমন আরা তৈয়ব, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান, অতিরিক্ত ডিআইজি জাকির হোসেন, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ( উপপরিচালক) মাধবী বড়ুয়া উপস্থিত ছিলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, নারীর লালিত স্বপ্ন পূরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জয়িতা ফাউন্ডেশন নির্মাণ করেছেন। নারীর দক্ষতা, যোগ্যতা ও ক্ষমতায়নের জন্য তৃনমূলে নেতৃত্ব দেওয়ার ব্যবস্থা রেখেছেন। নারীর দক্ষতা উন্নয়নের জন্য জেলা ভিত্তিক কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, পুরুষের পাশাপাশি নারীরা এখন স্বাবলম্বী হতে শিখেছে। পরিবার ও সমাজে নারীরা শিদ্ধান্ত  নিতে পারেন। সর্বত্র নারীর গ্রহণ যোগ্যতা বেড়েছে। নারীরা আমাদের সমাজে সমান তালে এগিয়ে যাচ্ছে। নারীরা এখন বাংলাদেশের উন্নয়নের সহযোদ্ধা বলে উল্লেখ করেন প্রতিমন্ত্রী।

জয়িতা সংর্ধ্বনা অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা( উপপরিচালক) মাধবী বড়ুয়া। এসময় জয়িতাদের সম্মানে থিমসং পরিবেশন করা হয়। বিভিন্নক্ষেত্রে সফলতার জন্য ৫৪ জন নারীকে জয়িতা হিসেবে সম্মাননা জানায় চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রশাসন। তাদের সনদ ক্রেষ্ট ও সম্মানী দেওয়া হয়। উক্ত ৫৪ জনের মধ্য থেকে সফল জননী হিসেবে চট্টগ্রামের মনোয়ারা বেগম,  শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেতে কুমিল্লার সুফিয়া আক্তার, অর্থনীতিতে রাঙ্গামাটির জয়শ্রী ধর, সমাজ উন্নয়নের ক্ষেত্রে  ব্রাক্ষনবাড়িয়ার তাছলিমা খানম এবং বিভীষিকাময় নারী হিসেবে লক্ষিপুরের  শিরিণ আক্তার পাঁচটি ক্যাটাগরিতে এই ৫ জনকে শ্রেষ্ঠ জয়িতা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।