নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা দৃশ্যমান: ড. সেলিম উদ্দীন


আপডেটের সময়ঃ ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২১


নারীর অধিকার সুসংহত রাখতে জাতিসংঘ কর্তৃক লিঙ্গ সমতাকে গুরুত্ব দিয়ে ৯টি টার্গেট ও ১৪টি সূচক নির্ধারণ করেছে যেখানে অন্য সকল লক্ষ্যমাত্রার সমন্বয় সাধন ঘটেছে। নারীর ক্ষমতায়ন, নারী শিক্ষার প্রসার, কর্মক্ষেত্রে নারীদের সমান সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত প্রভৃতি ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সফলতা দেখিয়েছে যা টেকসই উন্নয়ন অভিষ্ঠের ৫ম লক্ষ্যমাত্রা পূরণে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে।

এসডিজি ইয়ুথ ফোরাম’র উদ্যোগে ‘এসডিজি -৫ লিঙ্গ সমতা’ শীর্ষক সরাসরি ভার্চুয়াল ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের কার্যনির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশনের চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ সেলিম উদ্দীন।

এসডিজি ইয়ুথ ফোরাম’র এসডিজি-৫  লিঙ্গ সমতা কর্মসূচির সমন্বয়ক ও এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের সহকারী অধ্যাপক ড. শারিন শাহজাহান নওমি’র সভাপতিত্বে মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারী)  এসডিজি ইয়ুথ ফোরাম ফেইজবুক পেইজ থেকে সম্প্রচারিত সরাসরি ভার্চুয়াল ওয়েবিনারে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এসডিজি ইয়ুথ ফোরাম’র দপ্তর সম্পাদক মিনহাজুর রহমান শিহাব । বিশেষ অতিথি ছিলেন আন্তর্জাতিক নারী সংগঠন জোনটা ইন্টারন্যাশনালের পরিচালক প্রিন্সিপাল দিলরুবা আহমেদ, লন্ডনের উইমেন ইন গ্রোন প্রজেক্টের প্রতিষ্ঠাতা ব্যারিস্টার সাবিনা খান, এসডিজি ইয়ুথ ফোরাম’র সভাপতি নোমান উল্লাহ বাহার, পাকিস্তানের হিউমেন রাইটস কমিশনের সহযোগী পরিচালক কারিমা খান, সিয়েরা লিওনের বন ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের অন্তর্ভুক্ত খাদ্য নিরাপত্তা ও কৃষি কর্মসূচীর কর্মকর্তা আইশা নাসের ডারিং, বাংলাদেশের দিশা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা নিলানা নাওশিন, উন্নয়নকর্মী নার্গিস চৌধুরী , বরমা কলেজের প্রভাষক সালমা আহসান, এসডিজি ইয়ুথ ফোরাম’র ঢাকা টিম কো-অর্ডিনেটর ফারহানা বারী, ওব্যাট’র শিক্ষিকা ইশরাত পারভীন প্রমুখ।

ড. মোহাম্মদ সেলিম উদ্দীন আরো বলেন, বাংলাদেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে নারীদের অবদান বিশেষত তৈরি পোশাক খাতের মত সম্ভাবনা শিল্পে তাদের ভূমিকার জন্য বর্হিবিশ্বে আজ দেশের সুনাম সমুজ্জ্বল হয়েছে। দিলরুবা আহমেদ বলেন, নারীদের অধিকার সুরক্ষায় ঘরে বাইরে সর্বত্র নারীদের সমান সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। দৈনন্দিন কাজের মাঝে তাদের কোনোরকম যেন হয়রানির শিকার হতে না হয় সেদিকে সদা তৎপর ও সচেতন থাকতে হবে। ব্যারিস্টার সাবিনা খান বলেন, পারিবারিক সমস্যা বা ঝগড়া বিবাদের শিকার হয়ে অনেক নারী বৈষম্যের শিকার হয় যা তাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রাকে চরমভাবে ব্যাহত করে। সামাজিক শান্তি শৃঙ্খলা বিনষ্টের অন্যতম কারণ নারী অধিকার হরণ ও তাদের দমিয়ে রাখার অপকৌশল চর্চা করা।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।