চট্টগ্রামে ১১ পৌরসভা নির্বাচনে ভোট দিবে ৩ লাখ ৫৭ হাজার ভোটার


আপডেটের সময়ঃ ডিসেম্বর ৪, ২০২০


আসন্ন চট্টগ্রামের ১১ পৌরসভার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে স্ব স্ব এলাকাগুলোতে শুরু হয়েছে প্রার্থীদের আগাম প্রস্তুতি। প্রথমধাপে সীতাকুন্ড পৌরসভায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে ২৮ ডিসেম্বর। এ পৌরসভায়  ১০ ডিসেম্বর প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন রাখা হয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে সীতাকুন্ড ছাড়া বাকি ১০টি পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত নির্বাচনে ১১টি পৌরসভায় ভোটকেন্দ্র ছিল ১৫১টি। প্রতি তিন হাজার ভোটার ধরে একটি ভোটকেন্দ্র ও ৩০০ ভোটের বেশি হলে বুথ বাড়ানোর প্রস্তাবনা দেয়া হয়েছে। তবে আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে তিন লক্ষ ৫৬ হাজার ৯৯৫জন ১৬৩টি ভোটকেন্দ্রে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন । নতুন করে চার পৌরসভায় বাড়তে পারে ১২টি ভোটকেন্দ্র। এসব ভোটকেন্দ্রের প্রস্তাবিত তালিকা উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় থেকে জেলায় পাঠানো হয়েছে। এ তালিকা ধরে নির্বাচন করলে চট্টগ্রামের ১১টি পৌরসভায় ১৬৩টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, মেয়াদ শেষ হয়েছে এমন ১১টি পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা তিন লক্ষ ৫৬ হাজার ৯৯৫জন। এরমধ্যে পুরুষ এক লক্ষ ৮৫ হাজার ২১৪ জন ও মহিলা এক লক্ষ ৭১ হাজার ৭৮১ জন। পৌরসভাগুলোর মধ্যে সন্দ্বীপে পুরুষ ১৬ হাজার ৩২৮ ও মহিলা ১৬ হাজার ৬৯৪ জন মিলিয়ে ৩৩ হাজার ২২ ভোটার, মিরসরাইয়ে পুরুষ ছয় হাজার ৫১০ জন ও মহিলা ছয় হাজার ৪২৭জন মিলিয়ে ১২ হাজার ৯৩৭, বারইয়ার হাটে পুরুষ চার হাজার ৬০৬জন ও মহিলা চার হাজার ৬৭ জন মিলিয়ে আট হাজার ৬৭৩জন, সীতাকুন্ডে পুরুষ ১৭ হাজার ৮২৭জন ও মহিলা ১৬ হাজার ৯৮৬জন মিলিয়ে ৩৪ হাজার ৮১৩ ভোটার, রাউজানে পুরুষ ভোটার ২৫ হাজার ২৬৭ ও মহিলা ভোটার ২৩ হাজার ১৭২ মিলে সর্বমোট ৪৮ হাজার ৪৩৯ ভোটার, রাঙ্গুনিয়ায় পুরুষ ভোটার ১৩ হাজার ৪৪৭ জন ও মহিলা ভোটার ১২ হাজার ২৩৮ মিলিয়ে সর্বমোট ২৫ হাজার ৬৮৫ ভোটার, পটিয়ায় পুরুষ ভোটার ২২ হাজার ৭০৩ ও মহিলা ১৯ হাজার ৯৬২ ভোটার মিলিয়ে ৪২ হাজার ৬৬৫ ভোটার, চন্দনাইশে পুরুষ ভোটার ১৬ হাজার ৮১৬ জন ও মহিলা ভোটার ১৫ হাজার ১৭০ ভোট মিলিয়ে ৩১ হাজার ৯৮৬ ভোটার, সাতকানিয়ায় পুরুষ ভোটার ১৯ হাজার ৬২৫জন ও মহিলা ১৭ হাজার ৯২০ ভোট মিলিয়ে ৩৭ হাজার ৫৪৫ ভোটার, বোয়ালখালীতে পুরুষ ২৭ হাজার ১৩৫ জন ও মহিলা ভোটার ২৫ হাজার ৭০৩ ভোট মিলিয়ে সর্বমোট ৫২ হাজার ৮৩৮ ভোট, বাঁশখালীতে পুরুষ ১৪ হাজার ৯৫০ ও মহিলা ভোটার ১৩ হাজার ৪৪২ ভোট মিলিয়ে সর্বমোট ২৮ হাজার ৩৯২ ভোটার আছে।

এদিকে সীতাকুন্ডের উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার বুলবুল আহমদ সীতাকুন্ডে নির্বাচনী পরিবেশ এখন পর্যন্ত ভালো রয়েছে বলে জানালেন। তবে চট্টগ্রাম জেলা সহকারী নির্বাচন কর্মকর্তা কামরুল আলম বলেন, প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সীতাকুন্ড পৌরসভায় চারটি ভোটকেন্দ্র বাড়ানো হয়েছে। এছাড়া আরো কয়েকটি পৌরসভায় ভোটকেন্দ্র বাড়ানোর প্রস্তাবনা দেয়া হয়েছে। এগুলোর বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত দিবে। তিন হাজার ভোটার ধরে একটি কেন্দ্র বাড়ানোর কথা বলা হচ্ছে। ইতোমধ্যে পৌরসভাগুলোতে ভোটার সংখ্যাও নির্ধারণ করা হয়েছে।

নির্বাচন অফিস সূত্র আরো জানায়, সাতকানিয়ায় গত নির্বাচনে ১২টি ভোটকেন্দ্র ছিল। এবার সেখানে তিনটি বাড়িয়ে ১৫টি ভোটকেন্দ্রের প্রস্তাবনা  দেয়া হয়েছে। বাঁশখালীতে ১১টি ভোটকেন্দ্রের স্থলে তিনটি বাড়িয়ে ১৪টির প্রস্তাবনা  দেয়া হয়েছে। পূর্বের কেন্দ্রে  অধিক সংখ্যক ভোটার হওয়ায় এসব কেন্দ্র বাড়ানো হচ্ছে। এছাড়া মিরসরাইয়ে নয়টি, বারইয়ারহাটে নয়টি, রাউজানে ১৯টি, রাঙ্গুনিয়ায় ১১টি, বোয়ালখালীতে ১৮টি, পটিয়ায় ১৮টি, চন্দনাইশে ১৬টি ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ করা হবে। অন্যদিকে সীতাকুন্ড পৌরসভায় আগে কেন্দ্র ছিল ১৩টি। এবার চারটি বাড়িয়ে ১৭টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ করা হবে। নতুন ভোটকেন্দ্রগুলো হলো- এয়াকুব নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সীতাকুন্ড সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় (মহিলা কেন্দ্র) চাইল্ড কেয়ার কিন্ডার গার্টেন, যুবাইদিয়া সিনিয়র মহিলা মাদ্রাসা (মহিলা কেন্দ্র)। একইভাবে সন্দ্বীপে বর্তমানে ১৫টি ভোটকেন্দ্র থাকলেও এখন দুটি বাড়িয়ে ১৭টি করার প্রস্তাবনা দেয়া হয়েছে।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।