চট্টগ্রামে পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজিকালে হাতেনাতে গ্রেফতার ৩


আপডেটের সময়ঃ মে ৯, ২০২১


চট্টগ্রামে পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজিকালে তিনজনকে হাতে নাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  নগরের বাকলিয়ার কল্পলোক আবাসিক এলাকার একটি বাসায় অনৈতিক কাজ চলছে এমন অভিযোগ তুলে সেখানে অভিযানে যায় তিন ‘পুলিশ’।

অভিযানে গিয়ে সেখান থেকে বাড়ির মালিককে মারধর করে মামলার ভয় দেখিয়ে ৩০ হাজার টাকায় রফাদফা করার প্রস্তাব দেয় ওই তিন পুলিশ! চাপাচাপির এক পর্যায়ে এক আত্মীয়ের বিকাশ অ্যাকাউন্ট থেকে পাঁচ হাজার টাকা তাৎক্ষণিক আদায়ও করে ওই তিন ‘পুলিশ’ সদস্য। তবে ভুয়া পুলিশের এ অভিযানের খবর পৌঁছে যায় আসল পুলিশের কাছে।

শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ খবর পেয়েই বাকলিয়া থানা পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ পরিচয় দেওয়া রিয়াদ করিম, মো. ওসমান ও  মো. রায়হানকে আটক করে।

চকবাজার জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার মুহাম্মদ রাইসুল ইসলাম জানান, রাতে বাকলিয়া থানার কল্পলোক আবাসিক এলাকার এফ ব্লকের ৩ নম্বর রোডের একটি বাসায় আটক তিনজন প্রবেশ করে নিজেদেরকে পুলিশ পরিচয় দেয়। এ বাসায় অনৈতিক কর্মকাণ্ড হচ্ছে দাবি করে তাদের কাছে ৩০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। না দিলে থানায় নিয়ে বিভিন্ন মামলা দেওয়ার হুমকিও দেয়। দাবি করা টাকা দিতে অস্বীকার করলে বাড়িওয়ালা মো. লিটনকে ভুয়া পুলিশ পরিচয় দেওয়া ওই তিনজন মারধর করে।

একপর্যায়ে আটক তিন ভুয়া পুলিশ জোরপূর্বক লিটনের আত্মীয়ের বিকাশ নম্বার থেকে আসামি রিয়াদের বিকাশ নম্বরে ৫ হাজার টাকা চাঁদা গ্রহণ করে। বাড়ির মালিক লিটনের কাছে আটক তিনজনের আচরণে ভুয়া পুলিশ মনে হওয়ায় তিনি কৌশলে পুলিশকে খবর দেন। পুলিশের পরিচয়ে চাঁদা দাবির বিষয়টি খবর আসা মাত্রই বাকলিয়া থানা পুলিশ অভিযানে নেমে ঘটনাস্থল থেকে তিনজনকে আটক করে। আটক তিনজনের বিরুদ্ধে পুলিশ পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।