চট্টগ্রামে গুড়িয়ে দেয়া হয়েছে তিন অবৈধ দোকান


আপডেটের সময়ঃ সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০


চট্টগ্রামে চাক্তাইয়ের ড্রামপট্টিতে লীজের শর্ত ভঙ্গ করে গনশৌচাগারের আড়ালে ৩টিস্থায়ী ও ১টি টং দোকান নির্মাণ করায় সিটি কর্পোরেশন লীজ গ্রহীতা অভিজিত পান্ডেকে নোটিশ প্রদান করলে জবাবে তিনি লীজের শর্ত ভঙ্গ করেননি বলে সাফাই দেন। এ ধরনের একটি সংবাদ স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে চসিক প্রশাসক আলহাজ্ব মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেন এবং বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেন।

এই প্রেক্ষিতে রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর ) সকালে সরেজমিনে গেলে দেখা যায় লীজ দাতা শর্ত ভঙ্গ করে পাকা দোকান নির্মাণ করে লাগিয়ত করেছেন। শর্ত ভঙ্গের দায়ে চসিকের ভূ-সম্পত্তি শাখা এই অবৈধ স্থাপনা ৩টি ও টং ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেন।

এসময় চসিক প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. মুফিদুল আলম, এস্টেট অফিসার কামরুল ইসলাম চৌধুরী সহ কর্পোরেশনের বিদ্যুৎ ও পরিচ্ছনন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন।

এ প্রসঙ্গে চসিক প্রশাসক বলেন, আমি ঘোষনা দিয়েছিলাম চসিকের সম্পত্তি অবৈধ দখলদার থেকে উদ্ধার করতে নগরসীর তথ্য কাজে লাগানো হবে। এ ঘোষনায় নগরবাসী হতে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। তিনি নগরবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, চসিক আপনাদেরই প্রতিষ্ঠান। পথচারীরাই গণশৌচাগার ও ফুটপাত এর একমাত্র ব্যবহারকারী। তাই আপনাদের অধিকার রক্ষায় আমাকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করুন।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।