চট্টগ্রামে গাড়ি না পেয়ে কর্মজীবিদের সড়ক অবরোধ

টাইগারপাস মোড়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন তারা

আপডেটের সময়ঃ জুলাই ১, ২০২১

পরিবহন সংকটের কারণে নিজ কর্মস্থলে যেতে সীমাহীন কষ্টে চট্টগ্রামে সড়ক অবরোধ করেছে কর্মজীবিরা। মহানগরীতে সরকারি পরিবহনের পাশাপাশি ব্যক্তিগত গাড়ি অবাধে চললেও কর্মজীবিদের আসা যাওয়ার সিএনজি, বাস না চলায় গন্তব্যে পৌঁছতে পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ।

এসবের প্রতিবাদে বুধবার সড়ক অবরোধ করে বসেন কয়েকশ শ্রমিক ও জনতা। তাদের দাবি গণপরিবহন বন্ধ রেখে গার্মেন্টস ও অফিস কেন খোলা রাখা হবে? করোনা সংক্রমণরোধে সড়কে রিকশা ছাড়া সব ধরণের গণপরিবহন বন্ধ রাখা হলেও খোলা রয়েছে সরকারি-বেসরকারি অফিস ও গার্মেন্টস।

বুধবার সকাল ৮টা থেকে ৯ টা পর্যন্ত টাইগারপাস মোড়ে সড়ক অবরোধ করে এ বিক্ষোভ করেন বিক্ষুব্ধ জনতা।

কোতোয়ালী থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকায় কাজে বের হওয়া শ্রমিকরা ক্ষুব্ধ হয়ে সড়ক অবরোধ করেন। পরে তাদের গাড়ির ব্যবস্থা করে দিলে সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

শ্রমিকদের অভিযোগ, করোনার কারণে সারাদেশে লকডাউন দিয়ে গণপরিবহন বন্ধ রাখলেও গার্মেন্টস খোলা রাখা হয়েছে। ফলে কাজে যেতে তাদের কয়েকগুণ বেশি টাকা দিয়ে পৌঁছতে হচ্ছে। অথচ সরকারি ও ব্যক্তিগত গাড়ি ঠিকই চলছে। এক দেশে দুই আইন কেন? গরীবের জন্য একরকম আর বড় লোকের জন্য আর এক আইন কেন। সেকারণে গাড়ি না পেয়ে দুর্ভোগের কারণে প্রতিবাদে টাইগারপাস সড়ক অবরোধ করা হয়। এসময় সরকারি একটি বাহিনীর গাড়িও আটকে দেয় বিক্ষুব্ধরা। পরে ঘণ্টা খানেক সড়ক অবরোধ করে ‘বন্ধ’ ‘বন্ধ’স্লোগান দিতে থাকে তারা। প্রায় ঘণ্টা খানেক সড়ক অবরোধের পর কোতোয়ালী থানা পুলিশ এসে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদক।

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।