ওসি প্রদীপসহ ৫ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চট্টগ্রামে জোড়া খুনের মামলা


আপডেটের সময়ঃ সেপ্টেম্বর ২, ২০২০


টেকনাফ থানার বহিস্কৃত ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ৫ জন পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুই ভাইকে হত্যায় জোড়া খুনের মামলা হয়েছে চট্টগ্রামের একটি আদালতে।

বুধবার (২ সেপ্টেম্বর ) চট্টগ্রামের চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট কামরুন নাহার রুমী’র আদালতে টেকনাফ ও চন্দনাইশ থানার সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের বিরুদ্ধে ওই জোড়া খুনের মামলা দায়ের হয়। ৮ লক্ষ টাকা চাঁদার দাবীতে চন্দনাইশ থানা পুলিশের সহায়তায় নিজ গৃহ থেকে ধরে নিয়ে টেকনাফে মাদক ব্যবসায়ী বলে গুলি করে হত্যার মামলাটি দায়ের করেছেন নিহত আমানুল হক  ও আজাদুল হক আজাদ এর ছোট বোন প্রাইভেট হাসপাতালে কর্মরত নার্স রিনাত সুলতানা শাহিন (৩০)।

মামলায় সাবেক ওসি (বহিস্কৃত) প্রদীপ কুমার দাশ ছাড়াও কক্সবাজার টেকনাফ থানার এস.আই ইফতেখারুল ইসলাম, একই থানার কনস্টেবল মাজাহারুল, কনস্টেবল দীন ইসলাম কনস্টেবল আমজাদ এবং আরও ৫/৬ জন অজ্ঞাতনামা সহ চন্দনাইশ থানায় সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তা ( যাদের অপরাধ তদন্তে প্রকাশ পাবে)।

মামলার আরজিতে বাদি উল্লেখ করেন, উল্লেখিত আসামীরা গত ১৩ জুলাই রাত অনুমান সাড়ে সাতটায় এবং ১৫ জুলাই  দুপুর ২ টায় তার ভাইদ্বয়কে চন্দনাইশ পুলিশের সহায়তায় ৮ লক্ষ টাকা চাঁদার দাবীতে ধরে নিয়ে টেকনাফে হত্যা করা হয়। তাদের মাদক ব্যবসায়ী হিসেবে হত্যার কথা বললেও প্রকৃত পক্ষে তাদেরকে ধরে নেয়া হয় চন্দনাইশের ঠিকানা থেকে। যার ভিডিও ফুটেজ ও অন্যান্য সাক্ষ্য প্রমান আদালতে দাখিল করা হয়। বাদী পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন মানবাধিকার আইনজীবীগণ এডভোকেট এ.এম জিয়া হাবীব আহসান বলেন, আদালত শুনানী শেষে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত পূর্বক আগামী ২০ সেপ্টেম্বর এর মধ্যে আদালতকে অবহিত করতে এডিশনাল এসপি আনোয়ার সার্কেলকে নির্দেশ দেয়া হয়।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফোকাস চট্টগ্রাম ডটকম

পরিবার ও দেশকে সুস্থ রাখতে ঘরে থাকুন, করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরিধানসহ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখুন। সৌজন্যেঃ দেশচিত্র ডটনেট।